২৬শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম :
চৌদ্দগ্রাম থানায় পুলিশের কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত চৌদ্দগ্রামে সাবেক রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক মুজিবের পরিবার ও কনকাপৈত ইউনিয়ন আ”লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ডা,সরোয়ারদী মেম্বারের রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত, কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশের অভিযানে ফেনসিডিল, গাঁজাসহ ৪জন আটক চৌদ্দগ্রামে বিলকিছ আলম পাঠাগার পরিদর্শন করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস,এম,মুঞ্জুরুল হক কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম নিউ বিসমিল্লাহ সুইর্টস এর শুভ উদ্ধোধন চৌদ্দগ্রামে ভ্রাম্যমান আদালতে বিভিন্ন দোকানে ৮০ হাজার টাকা জরিমানা চাঞ্চল্যকর মামলায় পলাতক আসামী স্ত্রী রোকেয়া আক্তার শিউলী কে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৭, গুনবতীর দুবাই প্রবাসীকে হত্যা করে সন্তান নিয়ে রাতের আঁধারে উধাও স্ত্রী চৌদ্দগ্রামে হাজী সিদ্দিকুর রহমানের ইন্তেকাল, দাফন সম্পন্ন চৌদ্দগ্রামে মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব শুভাকাক্ষী নিয়ে নৌকা ভ্রমণ ও মিলন মেলা ২০২১ অনুষ্ঠিত কুমিল্লায় থানাতে কর্মরত অবস্থায় পুলিশ সদস্যের মৃত্যু !
  • প্রচ্ছদ
  • এক্সক্লসিভ >> চট্টগ্রাম >> টপ নিউজ
  • চৌদ্দগ্রামে, সকালে প্রবাসী পুত্র, রাতে পিতার মৃত্যু
  • চৌদ্দগ্রামে, সকালে প্রবাসী পুত্র, রাতে পিতার মৃত্যু

    স্টাফ রিপোর্টার : মালয়েশিয়ায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে রেমিটেন্সযোদ্ধা পুত্রের মৃত্যু শোকে মারা গেছেন দেশে থাকা চাকুরীজীবি পিতা। ইন্নালিল্লাহে ওয়াইন্না ইলাইহে রাজিউন। পিতা ও পুত্রের মৃত্যুর ঘটনায় পরিবারসহ পুরো এলাকায় চলছে শোকের মাতম। নিহতরা হলেন; কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের আবদুল্লাহপুর গ্রামের হাজারী বাড়ির সিরাজুল ইসলাম ও তাঁর প্রবাসী পুত্র মঞ্জুর ইসলাম। তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন মঞ্জুর ইসলামের বন্ধু প্রবাসী আবদুল গফুর।
    নিহতদের প্রতিবেশী ছাত্রনেতা ফখরুল হাসান জানান, পরিবারের সদস্যদের সুখের কথা চিন্তা করে জীবিকার তাগিদে মঞ্জুর ইসলাম মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমান। তাঁর পাঠানো রেমিটেন্সে পরিবারের সদস্যরা সুন্দরভাবে চলছিল। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস-গত কয়েকদিন আগে মঞ্জুর ইসলাম করোনায় আক্রান্ত হয়ে মালয়েশিয়ার একটি হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার সকালে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। পুত্র শোকে পিতা সিরাজুল ইসলামেরও বুধবার রাতে মৃত্যু হয়েছে। তিনি বেশ কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ছিলেন। বৃহস্পতিবার বাদ জোহর নামাজে জানাযা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ড্রাগন গ্রুপে চাকরি করতেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক মেয়ে এবং মঞ্জুর ইসলাম স্ত্রী, এক ছেলে ও দুই মেয়েসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে যান। পিতা-পুত্রের মৃত্যুতে পরিবারসহ আত্মীয় স্বজনের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে।

    আরও পড়ুন

    error: Content is protected !!