২৭শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম :
চৌদ্দগ্রাম থানায় পুলিশের কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত চৌদ্দগ্রামে সাবেক রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক মুজিবের পরিবার ও কনকাপৈত ইউনিয়ন আ”লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ডা,সরোয়ারদী মেম্বারের রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত, কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশের অভিযানে ফেনসিডিল, গাঁজাসহ ৪জন আটক চৌদ্দগ্রামে বিলকিছ আলম পাঠাগার পরিদর্শন করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস,এম,মুঞ্জুরুল হক কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম নিউ বিসমিল্লাহ সুইর্টস এর শুভ উদ্ধোধন চৌদ্দগ্রামে ভ্রাম্যমান আদালতে বিভিন্ন দোকানে ৮০ হাজার টাকা জরিমানা চাঞ্চল্যকর মামলায় পলাতক আসামী স্ত্রী রোকেয়া আক্তার শিউলী কে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৭, গুনবতীর দুবাই প্রবাসীকে হত্যা করে সন্তান নিয়ে রাতের আঁধারে উধাও স্ত্রী চৌদ্দগ্রামে হাজী সিদ্দিকুর রহমানের ইন্তেকাল, দাফন সম্পন্ন চৌদ্দগ্রামে মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব শুভাকাক্ষী নিয়ে নৌকা ভ্রমণ ও মিলন মেলা ২০২১ অনুষ্ঠিত কুমিল্লায় থানাতে কর্মরত অবস্থায় পুলিশ সদস্যের মৃত্যু !
  • প্রচ্ছদ
  • Uncategorized
  • কুমিল্লার বাড়িতে জীবিত ফেরা হলো না পিতা-পুত্রের
  • কুমিল্লার বাড়িতে জীবিত ফেরা হলো না পিতা-পুত্রের

    আব্বু তোমার বড় ভাই জোনায়েত হোসেনকে ডাক্তার দেখিয়ে বাড়িতে আসবো। তুমি ভালো করে লেখাপড়া করবে। তোমার ভাই এখন থেকে গ্রামের বাড়িতে থাকবে। বাড়িতে থেকে লেখাপড়া করবে। এ সব কথা বলে হাউমাউ করে কেঁদে ফেলেন এসি বিস্ফোরণে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মসজিদের মুয়াজ্জিন হাফেজ দেলোয়ার হোসেনের সেজ ছেলে জাকারিয়া (১৩)।

    শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সরেজমিনে গিয়ে কথা হয় নিহতের পরিবারের সাথে। গত শুক্রবার জুমার নামাজের আগে নারায়ণগঞ্জ তল্লা সর্দার পাড়া বায়তুল সালাহ জামে মসজিদে পিতা ও ভাইয়ের সাথে শেষ বারের মতন কথা হয়। শনিবার আব্বু, ভাই আর আমি এক সাথে বাড়িতে আসবো, এ সিদ্ধান্ত শেষে জাকারিয়া তার মাদ্রাসায় চলে আসে। তাদের আর বাড়িতে যাওয়া হলো না। চলে গেলেন পরপারে।
    শুক্রবার নারায়ণগঞ্জ তল্লা সর্দার পাড়া বায়তুল সালাহ জামে মসজিদে এশার নামাজ চলাকালে এসি বিস্ফোরণে অগ্নিদগ্ধ হয় মসজিদের মুয়াজ্জিন হাফেজ দেলোয়ার হোসেন (৪৭) ও তার বড় ছেলে জোনায়েদ (১৭)। পরে তাদের উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ণ অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট এ ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ২ টা ৩০ মিনিটের সময় হাফেজ দেলোয়ার হোসেনের মৃত্যু হয়। পরে শনিবার সকাল ১০টার সময় নিহতের বড় ছেলে জোনায়েদেরও মৃৃত্যু হয়।

    নিহত হাফেজ দেলোয়ার হোসেনের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার ঢালুয়া ইউনিয়নের বদরপুর। তিনি ওই গ্রামের হাজী বাড়ির মৃত. শফিকুর রহমানের ছেলে।

    শনিবার বিকেলে নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, হাফেজ দেলোয়ার হোসেনের ৩ মেয়ে সুমাইয়া আক্তার, সুরাইয়া আক্তার, ফাইজা ও ২ ছেলে জোনায়েদ হোসেন, জাকারিয়া ও এক স্ত্রী নিয়ে বসবাস। তিনি গত ১৫ বছর ধরে নারায়ণগঞ্জের ওই মসজিদের মুয়াজ্জিনের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ভালো লেখাপড়ার উদ্দেশ্যে গত ৮ বছর পূর্বে তার ২ ছেলে জোনায়েদ হোসেন ও জাকারিয়াকে সঙ্গে নিয়ে যান। নিহত জোনায়েদ ওখানকার স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় হাদিস লাইনে ৭ম শ্রেণি ও তার ভাই জাকারিয়া ২য় শ্রেণিতে পড়াশোনা করছেন।

    শনিবার রাতে গ্রামের বাড়ি সংলগ্ন মসজিদের পাশে পারিবারিক কবরস্থানে নিহত হাফেজ দেলোয়ার হোসেন ও তার ছেলে জোনায়েদের দাফন করা হবে বলে জানা যায়।

    আরও পড়ুন

    error: Content is protected !!